“ভোলায় যৌতুকের জন্য স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রীর মৃত্যু” আটক ৩,আসামী ৯

“ভোলায় যৌতুকের জন্য স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রীর মৃত্যু” আটক ৩,আসামী ৯

ভোলার সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নে শনিবার_সিরাজ(২০) নামে এক ব্যাক্তির যৌতুকের জন্য নির্যাতনে তার স্ত্রী লিপি বেগম(১৭)নামের এক মহিলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়। ঘটনা সূত্রে জানা যায় মোহাম্মদ সিরাজ(২০) এবং লিপির(১৭) আরো গত দুই বছর আগে বাল্য বিবাহের মাধ্যমে বিবাহ হয়। তাদের একটি ৫ মাসের শিশুও রয়েছে। প্রতিদিন লিপিকে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে যৌতুকের জন্য চাপ দেয়া হতো। গত চার মাস আগে তা পৌঁছে গেছে চরম শিখরে। যখন তাকে নির্যাতন করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। আর কে তাকে আজকে মৃত্যুর কাছে হার মানতে হয়।
লিপি বেগম এর পরিবার জানায়: গত ৪ মাস আগে যৌতুকের জন্য সিরাজ এবং সিরাজদের পরিবার লিপি বেগম এর উপর নির্যাতন চালায়। অসুস্থ অবস্থায় লিপির পরিবার তাকে বরিশাল সাগরদী হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার কোন উন্নতি না ঘটলে কিছুদিন পর তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজকে ভোলা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত হিসেবে ঘোষনা করেন। চার মাস পর আজকে লিপি বেগম কে মৃত্যু বরন করে নিতে হয় যৌতুকের কারনে। ফলে তার পরিবার ভোলা সদর থানায় বাদী হয়ে ৯ জনের নামে মামলা করেন। তার মধ্যে সিরাজ কে গত চারদিন আগেই আটক করা হয়েছে। আরো দুজনকে আজকে দুপুরের দিকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে সিরজের পরিবারের ৮ সদস্যের নামে মামলা করা হয়েছে। সিরজের বাবা জয়নাল হক ও সিরাজের ছোট ভাইকে আজ আটক করে পুলিশ। বাকি সদস্যরা পলাতক রয়েছে।
এখন লিপির পরিবারের দাবী তার মৃত্যুর জন্য যারা দায়ী তাদেরকে শীগ্রই আটক করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা।
ভোলা থানার ওসি জানান অতি দ্রুত ঘটনায় জরিতদের আটক করা হবে এবং ঘটনা তদন্ত করে তাদের ন্যায্য শাস্তি দেওয় হবে।
বাংলাদেশের মাটি থেকে যৌতুক প্রথার কুপ্রভাব এখনো কাটেনি প্রমান করে দিলো ঘটনাটি।

প্রতিবেদক: মো. সাইফুল ইসলাম
ভোলা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।