“কি করুম অামরা গরীব” ভোলায় জেলায় অন্ধ মায়ের ভিক্ষার সাথী জেডিসি পরিক্ষার্থী।

“কি করুম অামরা গরীব” ভোলায় জেলায় অন্ধ মায়ের ভিক্ষার সাথী জেডিসি পরিক্ষার্থী।

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট( জেডিসি) পরিক্ষা-২০১৮ অাগামী ১ নভেম্বর শুরু হবে।রাশেদা বেগম অার মনছুর অালীর দম্পতীর কন্যা সন্তান ২ টি, ছেলে নেইঅন্ধ রাশেদার বড় মেয়ে সারমিনের জম্মের পর তানিয়াকে ৩ মাসের গর্ভে রেখে, বউ মেয়ে সংসার ফেলে স্বামী মনছুর অালী চলে যায় চট্রগ্রামে। অাজও ফিরে অাসেনি মনছুর অালী , অন্ধ রাশেদা ভিক্ষা করে বিয়ে দেন বড় মেয়ে শারমিন কে যার বয়স বর্তমানে ২০ বছর। অন্ধ রাশেদার অভিযোগ মেয়ের ঘরে নায় নাত্কুর হয়েছে। জামাই যৌতুকের জন্য চাপ দেয় অটো কিনে দেওয়ার জন্য। অন্ধ রাশেদার অারেক মেয়ে তানিয়া ক্লাশ রোল ১৪ পড়ালেখা করেন মহেশ খালি মন্তাজ উদ্দিন দাখিল মাদ্রাসায়এবার জেডেসি পরিক্ষাথী। সাপ্তাহে একদিন ক্লাস বন্ধ রেখে প্রতি বৃহস্পতি বার অন্ধ মায়ের ভিক্ষার সঙ্গী হয় জেডেসি পরিক্ষাথী তানিয়া। পরের বাড়ি থেকে উঠানো দু বেলা ভাত দিয়ে চলে মা জিয়ের সংসার মাঝে মধ্যে বড় মেয়ে নায় নাত্তুকুর সহ এসে অতিতি হয় উঠানো ভাতের সংসারে। মেয়ে তানিয়াক্লাস রেখে অাসতে চায় না মার সাথে ভিক্ষার সঙ্গী হতে। বুজিয়ে সুনিয়ে তার পর নিয়ে অাসি। কি করুম বাপু বিক্ষা করে যাহা পাই তাহা দিয়ে কাগজ,কলম, খাতা, মেয়ের হাত খরচ চালাই, তার পরেও মেয়েটা শিক্ষিত হোক বলেন রাশেদা বেগম। তানিয়া বলেন, অামি প্রতিদিন ক্লাস যাই সাপ্তাহে বৃহস্পিবার মায়ের ভিক্ষার সঙ্গী হওয়ার জন্য অামি অাসি। মা অামাকে ছাড়া চলতেই পারে না। প্রতিদিন ক্লাসশেষে মানুষের বাড়ির উঠানো ভাতে অামাদের সংসার চলে ক্লাস বাদ দিয়ে ভিক্ষার সঙ্গী হতে অামার খারাপ লাগে,কি করুম অামরা গরীব। মা অন্ধ চোখে দেখে না বাপ কে অামি জম্মের পর চোখে দেখিনি। বেঁচে অাছে না মরে গেছে তা জানি না। মন্তাজ উদ্দিন দাখিল মাদ্রসার সুপার মাওলানা শফি উল্লাহ বলেন তানিয়া অামাদের মাদ্রসার নিয়মিত ছাত্রী। মডেল টেষ্ট পরিক্ষা দিয়েছে। মাদ্রাসা থেকে সে এবার (জেডিসি )পরিক্ষার রেজিঃ করেছে। গরিব অসহায় ভিক্ষা করে সংসার চলে দেখে মাদ্রসার পক্ষ থেকে ফ্রি রেজিঃ করে দিয়েছি। অালাপ কালে অন্ধ রাশেদা বেগম জানান তার মডেল টেষ্ট পরিক্ষা শেষ, ১ তারিখ থেকে গজারিয়া শুরু হবে পরিক্ষা, মেয়ের জন্য একটা নতুন বোরকাঅার একটা সাদা ওরনা কিনা দরকার কি করুম, ব্যাকে নতুন বোরকা পরে যাবে মেয়েটার জন্য কি নতুন বোরকার ব্যাবস্থা অাল্লায় করবে না। তার মা গরীব হওয়া সত্ত্বেও মেয়ের আশায় বুক বেধে আছেন।

মো. সাইফুল ইসলাম

ভোলা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।