সোনারগাঁয়ের সনমান্দী-অলিপুরা রাস্তার কাজে ব্যাপক অনিয়ম অবহেলার বিরোধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

সকালবিডি টুয়েন্টিফোর ডটকমঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের একটি আলোচিত রাস্তা অলিপুরা থেকে সনমান্দী। অলিপুরা সনমান্দী রাস্তাটি স্বাধীনতার পর তৈরি হলেও এখনো পাকাকরন হয়নি। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দলের নেতারা প্রতিশ্রুতি দিলেও রাস্তার কাজ কেউ করেনি।

দীর্ঘ ভোগান্তির পর নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার প্রচেষ্টায় ও সনমান্দী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ এর পঞ্চম বছরে এসে রাস্তাটির পাকাকরন টেন্ডার হয়। কিন্তু কাজ নিয়ে এলাকাবাসীর বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।

এই রাস্তাটি দিয়ে দৈনিক হাজারো জনসাধারণের চলাচল। সনমান্দী ইউনিয়নের ১৫/১৬ টি গ্রামের লোকজনের একমাত্র চলাচলের রাস্তা এটি। এই রাস্তা দিয়ে দৈনিক হাজারো চাকুরীজীবি তাদের কর্মস্থলে যাতায়াত করে। স্কুল, কলেজ ও ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীদের পায়ে হেটে চলাচল করতে হয়। ইউনিয়ন পরিষদ, ইউনিয়ন ভূমি অফিস ও বাজার অলিপুরা হওয়ায় জনসাধারণেরও প্রতিদিন যাতায়াত করতে হয়।

রাস্তার কাজের শুরু থেকেই ব্যাপক অনিয়ম ও অবহেলা করে যাচ্ছে রাস্তার ঠিকাদার। রাস্তা কেটে বালু ফেলে রাখায় রাস্তাটি দিয়ে চলাচল এখন প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে একটি সড়কের নির্মাণকাজ সময়মতো বাস্তবায়ন না হওয়ায় মানববন্ধন করেছেন নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ সনমান্দী ইউনিয়নের এলাকাবাসী। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকালে পশ্চিম সনমান্দীর আমিন মার্কেটে ১০/১৫ গ্রামের নারী-পুরুষ মানববন্ধনে অংশ নেন।

জানা যায়, বৃহত্তর ঢাকা গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প ৩-এর অধীনে উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের অলিপুরা থেকে সনমান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত সড়কটি নির্মাণ করতে এলজিইডির নারায়ণগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী দরপত্র আহ্বান করে। পরে ২ কোটি ৯৯ লাখ ৯২ হাজার টাকা দর দিয়ে সড়কটির কার্যাদেশ পায় মুন্সিগঞ্জের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘এস সরকার এন্টারপ্রাইজ’। কাজটি ২০১৯ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর শুরু করে ২০২১ সালের ২৫ মার্চ শেষ করার শর্তাবলী দেওয়া হয় কার্যাদেশে।

এদিকে সড়কটি খোঁড়াখুঁড়ি করে কাজ ফেলে ঠিকাদার চলে যাওয়ার কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন সনমান্দী ইউনিয়নের সনমান্দী, ছনকান্দা, বৈদ্যেরকান্দী, কাফাইয়াকান্দা, বাবুরকান্দী, মারব্দী, কান্দাপাড়া, সাজালেরকান্দি, চরভুলুয়া, মহেশ্বরদীসহ ওই ইউনিয়নের ১০ গ্রামের মানুষ।

রাস্তার কাজ দ্রুত শেষ নাহলে আগামী বর্ষা মৌসুমে এলাকার মানুষকে চরম ভোগান্তির সম্মুখীন হতে হবে।
মানববন্ধন এর মাধ্যমে এলাকাবাসী রাস্তার কাজ সঠিক ভাবে দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। মানববন্ধনে জড়ো হওয়া এলাকাবাসী আরো জানান, রাস্তার কাজ দ্রুত নির্মাণ না হলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে মানববন্ধন করবেন তারা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।