এ প্রজন্মের মুক্তিযোদ্ধা দেখতে চাইলে বিএনপি নেতাকর্মীদের দেখুন- রাজিব

নারায়নগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মাসুকুল ইসলাম রাজিব বলেছেন, এ প্রজন্মের মুক্তিযোদ্ধা দেখতে চাইলে বিএনপির ছাত্রদল,যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদলের নেতাকর্মীদের দিকে নজর দিতে।

বর্তমান রাজনীতির বহুলাংশের সমালোচনা করে রাজিব তার ফেইসবুক ওয়ালে লিখেন ,

” দেশের গনতন্ত্র রক্ষায় ও দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় যখনই বাধা এসেছে, যখনই অত্যাচারী কালো থাবা দেশের মানুষের পিঠে পড়েছে বা পড়ার চেষ্টা হয়েছে তখনই সবার আগে তার প্রতিবাদ করেছেন বেগম খালেদা জিয়া।
আর আজ তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে বন্দী।

এ প্রজন্ম ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধ দেখে নি। ইতিহাস থেকে জেনেছে এ গৌরবগাঁথা ঘটনাকে। ৭১ এর মহান মুক্তির সংগ্রামের সময় অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সইতে হয়েছিলো অনেক কষ্ট বেদনা, প্রিয়জন হাড়ানোর শোক, অত্যাচারিত হতে হয়েছিলো, নিপীড়িত হতে হয়েছিলো পশ্চিমা পাক হানাদের হাতে।
আর বর্তমান বাংলাদেশে তাকিয়ে দেখুন,
যারা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে থাকতে চায়, বাধা তাদেরকেই দেয়া হয়, যারা শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য লড়ছে তাদেরকেই হতে হচ্ছে পদে পদে লাঞ্ছিত, নির্যাতিত, নিপীড়িত।
রাজনীতির দিকে তাকিয়ে দেখুন,
গনতন্ত্র ও জনগনের ন্যায্য অধিকার, ও জনতার প্রাণের আকাঙখা আদায়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল – বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠন সংগ্রাম করে যাচ্ছে, অথচ তাদের উপরেই মারা হচ্ছে ভয়াল কালো থাবা।
এলাকায় এলাকায় সার্চ করে বিএনপি নেতা কর্মীদের তথ্য সংগ্রহ করে তাদেরকে করা হচ্ছে মিথ্যা মামলার আসামী।
দেয়া হচ্ছে একটার পর একটা মামলা।
চেষ্টা করা হচ্ছে এ দলটিকে দমিয়ে রাখার।
ইতিহাস দেখুন,
১৯৭১ সালেও কিন্তু পাক হানাদারেরা চেষ্টা করেছিলো।
কিন্তু পেরেছিলো কি, এ দেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিকামী জনতা ও মুক্তিযোদ্ধাদের দমাতে?
পারে নি।
বরং মুক্তিযোদ্ধারা আরো শক্তিশালি লড়াই করে বিজয় কিন্তু ঠিকই ছিনিয়ে এনেছিলো।
আর ইতিহাস কিন্তু বারবার পূনরাবৃত্তি ঘটে।
আজ বিএনপির ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল ও বিএনপির সব অঙ্গসংগঠন এর নেতাকর্মীদেরও কিন্তু ঐ তখনকার সময়ের মতো নির্যাতন করা হচ্ছে রাষ্ট্রীয় যন্ত্র ব্যবহার করে।

তবে সেই ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধাদের মতো ইনশাআল্লাহ অতি দ্রুত বিএনপিও দেশের শান্তিকামী জনগনকে সাথে নিয়ে এ অপশক্তিকে হাড়িয়ে গনতন্ত্রের বিজয়, জনগনের ভোটের অধিকার ও সুশাসন ছিনিয়ে আনবে।
আর সে দিন কিন্তু ঘনিয়ে আসছে।
১৯৭১ এর রনাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধারা যেমন দেশের জন্য জীবন বাজী রেখেছেন,
তেমনি এখন বিএনপির ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রত্যেকটা নেতাকর্মীও কিন্তু দেশের শান্তি প্রতিষ্ঠায় লড়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত।
আমি তো বলবো, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ এ প্রজন্ম দেখে নি।
কিন্তু ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুদ্ধ কিন্তু এ প্রজন্ম দেখছে।

উল্লেখ্য যে, মাসুকুল ইসলাম রাজিব দীর্ঘদিন যাবত নিরুদ্দেশ রয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।