খুনী-ষড়যন্ত্র কারীদের সাথে জোট করেছেন কামাল হোসেন – ভোলায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

খুনী-ষড়যন্ত্র কারীদের সাথে জোট করেছেন কামাল হোসেন – ভোলায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, খুনীদের ও দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র কারীদের সাথে জোট করেছে ড.কামাল হোসেন। যাদের লক্ষ্য একটাই শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরানো। কিন্তু তাদের এ লক্ষ্য কোনদিন পূরণ হবে না। বাংলার মানুষ তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াঁবে।শনিবার (২০ অক্টোবর) সকালে ভোলা সদর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে যুব মহিলা লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি সভায় বাণিজ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।তোফায়েল আরো বলেন, বিএনপি ড. কামাল হোসেনকে নিয়ে জোট করেছে। যে কামাল হোসেন আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর ছেড়ে যাওয়ার আসনে। সে নিজে কোনদিন সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হতে পারেন নাই। তিনিই আবার জোট করেছেন ২১ শে আগষ্ট গ্রেনেড হামলাকারীদের সাথে, যারা কিনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করেছিল। জোট করেছেন তাদের সাথে যারা ২১ আগস্ট ২৪ জনকে হত্যা করেছিল। যাদের যাবজ্জীবন কারাদন্ড- হয়েছে-ফাঁসির হুকুম হয়েছে। জোট করছেন তাদের সাথে যারা ৭১-এর মানবতা বিরোধী। এই জোটের কোন আদর্শ নাই, লক্ষ্য নাই।বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবি সংবিধান পরিপন্থি। কোনটাই গ্রহণযোগ্য নয়। শুধু একটা দাবিই মনে হয় বাকি ছিল তাদের ক্ষমতা দিয়ে দেয়া। যে দলের নেতাকারাগারে, রাজপথে আন্দোলন করতে পারেনা। তারা কখনই ক্ষমতায় যেতে পারবেনা।তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিবে। আর নির্বাচনে অংশ না নিলে ভাসানীর ন্যাপ এর মতো অবস্থা হবে। বিএনপির মধ্যে যোগ্য লোক নেই বলে কামাল হোসেন এর মতো দল ত্যাগী নেতাকে বেছে নিয়েছে।এবারের নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক, অবাধ, নিরপেক্ষ হবে জানিয়ে এ প্রবীণ নেতা বলেন, বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন কমিশনের আগামী নির্বাচন হবে। আর নির্বাচন কালীন সরকার এর প্রধানমন্ত্রী হবে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাই আগামী নির্বাচনে নৌকার বিজীয় করতে হলে গ্রামে গ্রামে আওয়ামীলীগের দুর্গ গড়ে তুলতে হবে।বর্তমান সরকারে উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরতে হবে জনগনের মাঝে। শেখ হাসিনাকে আবার প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। তাকে প্রধানমন্ত্রী করতে পারলে আগামী ৫ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ হবে বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল।জেলা যুব মহিলা লীগের আহবায়ক খাদিজা আকতার স্বপ্নার সভাপতিত্বে সভায় গেস্ট অবঅনার হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মিসেস মনোয়ারাহোসেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মহিলা এমপি (সংরক্ষিত) এড্যাভোকেট মমতাজ বেগম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সভাপতি দোস্ত মাহামুদ, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, এনামুল হক আরজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, ভাইস চেয়ারম্যান মো:ইউনুছ, জেলা মহিলা লীগের সাধারন সম্পাদিকা অধ্যক্ষ শাফিয়া খাতুন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেতারা বেগম,সদর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদ আজিজুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।সভায় খাদিজা আক্তার স্বপ্নাকে আহবায়ক ও নাজনিন আক্তার রুমাকে সদস্য সচিব করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট ভোলা জেলা যুব মহিলা লীগ এরসম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অনন্য সদ্যরা হলেন-রেহান ফেরদৌউস,সালসাবিন আফরিন, সদস্যরা হলেন-শামসুন নাহার, নাহিদা পারভীন, খাদিজাবেগম, ফারহানা হক রিতা, নুসরাত জাহান, ফারজানা হক নেভিন, শিরিন আক্তার ।

মো.সাইফুল ইসলাম

ভোলা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।