যুবসংহতির নতুন কমিটি ঘোষনা মতলব উত্তর চাঁদপুর এর

যুবসংহতির নতুন কমিটি ঘোষনা……..
এমরান হোসেন মিয়ার অপরাজনীতি বন্ধে
মতলব উত্তরে জাতীয় যুবসংহতির প্রতিবাদ সভা

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান এমরান হোসেন মিয়ার অপরাজনীতি বন্ধে মতলব উত্তর উপজেলা জাতীয় যুবসংহতি কর্তৃক এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকালে মতলব উত্তর উপজেলার ছেঙ্গারচর পৌর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা জাতীয় যুবসংহতির আহ্বায়ক এ্যাড. শামীমুল ইসলাম।

সদস্য সচিব প্রভাষক আলমাছ মিয়ার সঞ্চালনায় প্রতিবাদী বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় যুবসংহতির নেতা ও মতলব উত্তর উপজেলা জাতীয় যুবসংহতির সাবেক সভাপতি জিশান আহমেদ রিপন, ছেঙ্গারচর পৌর জাতীয় পার্টির সভাপতি আবুল কালাম আজম, সাদুল্লাপুর ইউনিয়ন জাপার সাধারন সম্পাদক মাইনুদ্দিন মাস্টার, মোহনপুর ইউনিয়ন জাপার সভাপতি মো. সিরাজ উদ্দিন, উপজেলা যুবসংহতির যুগ্ম-আহ্বায়ক মুফতী মো. আজহার উদ্দিন, যুগ্ম-আহ্বায়ক সাংবাদিক জাকির হোসেন, ইব্রাহিম খলিল, সুফী আহমেদ, ছেঙ্গারচর পৌর যুবসংহতির সভাপতি মো. কাইয়ুম প্রধান প্রমুখ। সভায় বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত জাতীয় পার্টি, যুবসংহতি, ছাত্রসমাজ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্রীয় যুবসংহতির নেতা জিশান আহমেদ রিপন বক্তব্যে বলেন, পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান এমরান হোসেন মিয়ার অপরাজনীতির কারনে মতলবে জাতীয় পার্টির তৃণমূল পর্যায়ে নিঃশ্বেষ হতে যাচ্ছে। তার কারনে মতলবের জাতীয় পার্টির রাজনীতি আজ দ্বিধা-বিভক্ত। তিনি এমরান হোসেন মিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপানার কুটচাল বন্ধ করেন। জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র মেনে রাজনীতি করুন। না হলে মতলবের মাটিতে আপনার কোন স্থান হবে না। আপনি গঠনতন্ত্র বর্হিভূত যুবসংহতির যে পকেট কমিটি ঘোষনা দেওয়ার পায়তারা করছেন তা আমরা প্রত্যাখ্যান করলাম। প্রয়োজনে আপনাকে মতলবের মাটি থেকে প্রত্যাখ্যান করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে। মতলব উত্তরে এ্যাড. শামীমুল ইসলাম ও প্রভাষক আলমাছ মিয়ার নেতৃত্বেই যুবসংহতির পরিচালিত হবে। তিনি এ্যাড. শামীমুল ইসলামকে সভাপতি ও প্রভাষক আলমাছ মিয়াকে সাধারন সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করেন। তিনি বলেন, এ কমিটির মাধ্যমেই মতলব উত্তরে জাতীয় যুবসংহতি সুসংগঠিত হবে। বিকল্প কোন কমিটি মতলব উত্তরের মাটিতে ঠাঁই পাবে না।

ছেঙ্গারচর পৌর জাপার সভাপতি আবুল কালাম আজম বলেন, মতলব উত্তর উপজেলা জাতীয় পার্টি সংগঠিত করার লক্ষ্যে সভাপতি এ্যাড. শামীমুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক প্রভাষক আলমাছ মিয়ার নেতৃত্বে যুবসংহতির এ যোগ্য কমিটিকে আমরা সমর্থন জানাই। যুবসংহতির সকল কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমরা সবসময় তাদের পাশে থাকবো।

সভাপতির বক্তব্যে এ্যাড. শামীমুল ইসলাম বলেন, রাস্তা থেকে ধরে এনে কাউকে দিয়ে কমিটি করলে সেই কমিটির মতলব উত্তরে কোন স্থান নেই। তিনি এমরান মিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনি সুস্থ ধারায় ফিরে আসুন। আমরা চাই মতলবে জাতীয় পার্টি শক্তিশালী হোক। আপনি পার্টিকে নিজের মনে করে যা খুশি তা করে যাচ্ছেন। আমরা আপনার এ হীন উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে দেবো না। এখনো সময় আছে আসুন দলের জন্য কাজ করি, সুষ্ঠু ধারায় রাজনীতি করি এবং পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করি।

প্রভাষক আলমাছ মিয়া এমরান হোসেন মিয়ার উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাকে ঘিরে গুটি কয়েকজন তোষামতকারী কাজ করছে। এতে দলের চরম ক্ষতিসাধন হচ্ছে। তাদেরকে দল থেকে টেনে বের করে দলকে দালাল মুক্ত করবো। আমরা চাই মতলবে দালাল মুক্ত জাতীয় পার্টি হোক। যাতে করে আগামী দিনে জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আনতে পারে।

ছেঙ্গারচর পৌর যুবসংহতির সভাপতি মো. কাইয়ুম প্রধান বলেন, দল দালালে ভরে গেছে। এই দালালদেরকে বের করতে না পারলে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের হাত শক্তিশালী হবে না। দালাল দিয়ে রাজনীতি হয় না। এমরান হোসেন মিয়া কয়েকজন দালাল লালন-পালন করেন। তাদের কারনে মতলবে আজ জাতীয় পার্টি ধ্বংসের পথে। এসব অপরাজনীতি বন্ধ করুন। না হলে মতলবের জনগন আপনাকে অবাঞ্চিত করতে বাধ্য হবে।

১০.৩.১৮

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।