যখন আমি মরে যাবো— তাহমিদ আবরার

জন্মেছি যখন,
মরতেই হবে,
যেতে হবে এই জগৎ ছেড়ে.
মাটির মাঝে মিশে যাবো আমি,
হাজারো কান্নার ভিড়ে.

যখন আমি মরে যাবো,
বন্ধ হয়ে যাবে আমার নি:শ্বাষ,
বলবে সবাই . .এ মানুষ নয়,
এ যে একটা মরা লাশ.

স্বজনেরা মোর করছে কান্না,
শোকে হয়ে গেছে স্তব্ধ.
আমি তো পারিনা করিতে কিছুই ,
আমি হয়ে গেছি বন্ধ.

পরম যত্নে করায়ে গোসল,
মুরায়ে কাফনের কাপড়ে.
খাটিয়ায় করে নিয়ে রেখে দেবে মোরে,
অন্ধকার ঐ কবরে.

কবরে রাখিয়া মোরে,
আসবে চলে সবাই,
থাকবো আমি একা.
সেদিন আমি বুঝতে পারবো,
একা থাকিবার ব্যাথা.

মুনকির-নকির আসিয়া মোরে,
করবে তিনটা প্রশ্ন.
উত্তরে আমি পারবো বুঝিতে,
দুনিয়ায় করেছি কি কর্ম.

যদি করে থাকি কোন ভালো কাজ,
তবে পাইবো জান্নাত.
সেখানে শুধু শান্তি..শান্তি,
আমি তার মেহমান.

যদি করে থাকি খারাপ কিছু,
তবে পেয়ে যাবে তার শাস্তি.
জাহান্নামের আগুনে ঝলসে যাবে,
আমার মাংস-অস্থি.

দিন কিছু পড়ে শুনতে পাবে,
আমার নামের ধ্বনি.
যেও যেও ভাই,
যেই মোর বাড়ি,
আজ আমার কুলখানি.

বন্ধ হয়ে পরে থাকে মোর,
প্রাণ প্রিয় সেই ঘর .
কলমের কালি আর পড়েনা খাতায় ,
নেই
আমি সেই কবিবর !

কবিতা লিখেছে,সাদিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনির ছাত্র তাহমিদ আবরার

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।